• বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০২:০৪ অপরাহ্ন
সর্বশেষ খবর
ঈদগাঁও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩টি পদে মোট ১৭জনের মনোনয়নপত্র দাখিল লাঞ্ছিত জীবনগাঁথা ঈদগাঁওতে ডিসি ও এস পি, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসন বদ্ধপরিকর উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে ঈদগাঁওতে নতুন পুরাতন প্রার্থীদের দৌঁড় ঝাঁপ ইয়াবা ও দালালীর জাদুতে আলাদীনের চেরাগপ্রাপ্ত কথিত সাংবাদিক নেতা কেতারা কি আইনের উর্ধ্বে? জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আব্দুল হাই ৩১ দিন পর অক্ষত অবস্থায় মুক্ত জাহাজসহ জিম্মি থাকা ২৩ নাবিক জামিন প্রাপ্ত মাদক ব্যবসায়ীরা বেপরোয়া, ঠেকানো যাচ্ছে না আগ্রাসন পেটে ভাত নেই,”গরিবের আবার কিসের ঈদ” কক্সবাজারে মাদক পতিতার মজুদ,আনন্দ বাড়াতে উড়াল দিচ্ছে ধনীরা কুতুবদিয়ায় পানিতে ডুবে একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যু

মানুষের প্রয়োজনে কোহেলিয়া সহ সব নদী রক্ষা করতে হবে : এমপি কমল

নিজস্ব প্রতিবেদক
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

কোহেলিয়া নদী সংলাপে কক্সবাজার সদর আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল বলেছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নদীকে জীবন্ত সত্তা হিসেবে ঘোষনা করেছেন। এব্যাপারে মহামান্য সুপ্রিমকোর্টের কঠোর নির্দশনাও রয়েছে। তাই কোহেলিয়া নদীসহ সব নদীকে মানুষের প্রয়োজনে রক্ষা করতে হবে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ বুধবার কক্সবাজার সাস্কৃতিক কেন্দ্রের সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) আয়োজিত ‘কোহেলিয়া নদী সংলাপ ‘ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষনে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠানের সভাপতি জাতীয় নদী কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ড. মুজিবুর রহমান হওলাদার বলেন, যারা কোহেলিয়া নদী ভরাট করে রাস্তা নির্মান করছে তারা ফৌজদারি আইনে অপরাধী। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নদী রক্ষায় অত্যন্ত কঠোর। তিনি মহেশখালীতে অনেক মেঘা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছেন।

তিনি নদী ভরাট করে উন্নয়নের নির্দেশ কখনো দেন নি। তাঁকে জানানো হয় নি।তিনি জানলে এ ফৌজদারি অপরাধীদের আইনের আওতায় নিয়ে আসতেন। আমি কক্সবাজারের মানুষ না হলেও এ দেশের নাগরিক। বাংলাদেশের নাগরিক হিসেবে আমি সব নদীর সেবা গ্রহন করি। কোহেলিয়া নদী নিয়ে আমি আইনি পদক্ষেপ নেবো।
বাপা’র কেদ্রীয সাধারন সম্পাদক শরীফ জামিল বলেন, কোহেলিয়া নদী ভরাট করে রাস্তা নির্মানের কারণে প্রায চার হাজার মানুষ বেকার হয়ে পড়েছে। আন্দোলন হোক বা আইনি পদক্ষেপ হোক কোহেলিয়া নদীকে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে আনবোই। যারা নদী ভরাট করছেন তারা প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। মানুষের জন্য নদী। তাই নদী রক্ষা প্রতিটি
মানুষের দায়িত্ব।
বাপা কক্সবাজার জেলা সভাপতি সাংবাদিক ফজলুল কাদের চৌধুরীর উপস্থাপনায অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন,জেলা প্রশাসনের সিনিয়র সহকারি কমিশনার মো. মোস্তফা জাবেদ কায়সার, জেলা মৎস্য অফিসের সিনিয়র সহকারি কমিশনার মো. ইকবাল হোসেন, কোল পাওয়ার জেনারেশান কোম্পানির নির্বাহী প্রকৌশলী মো.মাহমুদ আলম, কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র শাহেনা আক্তার পাখি, ধলঘাটা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল হাসান,মহেশখালী বাপা’র সভাপতি মোসাদ্দেক আলী ফারুকী, মহেশখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল বশর পারভেজ, সাংবাদিক আমিনুল ইসলাম, পান চাষী ওসমান সরওয়ার খোকা, হেলাল উদ্দিন,জেলে লিয়াকত আলী,জাহাঙ্গীর আলম, লবন চাষী মোস্তফা কামাল, লবন ব্যবসায়ী আহমদ হোসাইন।
অনুষ্ঠানে কোহেলিয়া নদী নিয়ে পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপন করে বাপার কেন্দ্রীয নেতা ও গবেষক আরাফাত জোবায়ের।উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খান, ফরিদুল আলম শাহীন, সৌরভ দেব।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাপা কক্সবাজার জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক করিম উল্লাহ কলিম, সহ সভাপতি ফরিদুল মোস্তফা খান, ইন্জিনিয়ার কানন পাল,মোর্শেদুর রহমান খোকন,সমীর পাল, এম জসিম উদ্দিন, এম নেজাম উদ্দিন,জাফর আলম দিদার, বুলবুলে জান্নাত, সাগঠনিক সম্পাদক,এ এইচ নজরুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক দোলন ধর, শহর শাখার কফিল উদ্দিন, গ্রিন ভয়েসের শহীদুল ইসলাম সৈয়দুল হক আজাদ, ঝাউতলার আহ্বায়ক কাজী মাসুদুর রহমান, , সদস্য সচিব মো, শফি, আনোয়ারুল ইসলামসহ বাপার নেতৃবৃন্দ ও সম্মানিত অতিথিবৃন্দ।


আরো বিভন্ন নিউজ দেখুন