• রবিবার, ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:২৮ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
লাঞ্ছিত জীবনগাঁথা ঈদগাঁওতে ডিসি ও এস পি, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসন বদ্ধপরিকর উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে ঈদগাঁওতে নতুন পুরাতন প্রার্থীদের দৌঁড় ঝাঁপ ইয়াবা ও দালালীর জাদুতে আলাদীনের চেরাগপ্রাপ্ত কথিত সাংবাদিক নেতা কেতারা কি আইনের উর্ধ্বে? জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আব্দুল হাই ৩১ দিন পর অক্ষত অবস্থায় মুক্ত জাহাজসহ জিম্মি থাকা ২৩ নাবিক জামিন প্রাপ্ত মাদক ব্যবসায়ীরা বেপরোয়া, ঠেকানো যাচ্ছে না আগ্রাসন পেটে ভাত নেই,”গরিবের আবার কিসের ঈদ” কক্সবাজারে মাদক পতিতার মজুদ,আনন্দ বাড়াতে উড়াল দিচ্ছে ধনীরা কুতুবদিয়ায় পানিতে ডুবে একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যু টেকনাফ অপরাধ নিয়ন্ত্রণে স্থানীয়দের সহায়তা চাইলেন এসপি মাহফুজ

কাঁদলেন প্রধানমন্ত্রী,কাঁদলেন এমপি আশেক

নাজিম উদ্দিন (কুতুবী)
আপডেট : রবিবার, ১২ নভেম্বর, ২০২৩


নাজিম উদ্দিন (কুতুবী) :


প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য চলাকালে এক পর্যায়ে তিনি স্থানীয় তরুণ সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিককে অনেকটা ছেলেকে ডাকার মতো ডাকলেন, ‘এই আশেক তুমি ওইদিকে কোথায় যাও, আমার পাশে দাঁড়াও’। নিজের পাশে দাঁড় করিয়ে তাকে উদ্দেশ্য করে প্রধানমন্ত্রী বললেন, উনার বাবাকে আমি চিনতাম, উনি একটি দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। আপনাদের সাংসদ খুব ব্রিলিয়ান্ট, ভালো মানুষ। তাকে আপনাদের কাছে দিয়ে গেলাম। তাকে আপনারা নৌকায় ভোট দিয়েছেন বলে এইসব উন্নয়ন হয়েছে।

এ কথা বলে উপস্থিত জনতার কাছে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার সময় বুক চেপে ধরে চাপা কান্না কাঁদলেন সংসদ সদস্য আশিক উল্লাহ রফিক। এ সময় প্রধানমন্ত্রী নিজেও পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট মা–বাবা হারানোর কথা বলে কেঁদে দেন।

গোধূলি লগ্নে আকাশ থেকে বন্দর দর্শন : বর্তমান সরকারের মেয়াদের একেবারে শেষের দিকে মাতারবাড়ি সমুদ্র বন্দরের চ্যানেল ও কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশ শেষে ৪টি হেলিকপ্টারের বহর নিয়ে গোধূলি লগ্নে চলে যাওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী যখন আকাশে উড়লেন তখন তিনি হেলিকপ্টার নিয়ে পাশাপাশি স্থাপিত কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প ও গভীর সমুদ্র বন্দরের চ্যানেল এবং এলএনজি টার্মিনাল ঘুরে দেখলেন।

হাজিরা ডাকা : যুবলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ ফজলে নাঈম বক্তব্যের সময় ভিন্ন রকম একটি কাজ করেন। মঞ্চের সামনে বিশাল প্যান্ডেলে বিভিন্ন রঙের টুপি, গেঞ্জি পরে কক্সবাজারের বিভিন্ন উপজেলা থেকে যুবলীগের নেতাকর্মীরা এসেছিলেন। কোন নেতার পেছনে কেমন কর্মী–সমর্থক রয়েছেন কিংবা কোন উপজেলা থেকে কত কর্মী এসেছেন তা জানতে তিনি বিভিন্ন উপজেলার নাম ডেকে কর্মী ও সমর্থকদের হাত তুলে দাঁড়াতে বলেন। এ সময় হাস্যরসে অনেক নেতাকর্মীকে বলতে শোনা যায়, এ যেন আমাদের হাজিরা ডাকা হচ্ছে।


আরো বিভন্ন নিউজ দেখুন