• বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২:৫৩ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
ঈদগাঁও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩টি পদে মোট ১৭জনের মনোনয়নপত্র দাখিল লাঞ্ছিত জীবনগাঁথা ঈদগাঁওতে ডিসি ও এস পি, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসন বদ্ধপরিকর উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে ঈদগাঁওতে নতুন পুরাতন প্রার্থীদের দৌঁড় ঝাঁপ ইয়াবা ও দালালীর জাদুতে আলাদীনের চেরাগপ্রাপ্ত কথিত সাংবাদিক নেতা কেতারা কি আইনের উর্ধ্বে? জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আব্দুল হাই ৩১ দিন পর অক্ষত অবস্থায় মুক্ত জাহাজসহ জিম্মি থাকা ২৩ নাবিক জামিন প্রাপ্ত মাদক ব্যবসায়ীরা বেপরোয়া, ঠেকানো যাচ্ছে না আগ্রাসন পেটে ভাত নেই,”গরিবের আবার কিসের ঈদ” কক্সবাজারে মাদক পতিতার মজুদ,আনন্দ বাড়াতে উড়াল দিচ্ছে ধনীরা কুতুবদিয়ায় পানিতে ডুবে একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যু

বাংলাদেশি জাতীয় পরিচয়পত্র ও পাসপোর্ট চক্রের প্রধান রোহিঙ্গা নেতা নুরুল হক আত্নগোপনে,বিদেশ পালানোর আশঙ্কা

নিজস্ব প্রতিবেদক:
আপডেট : সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০২৩


নিজস্ব প্রতিবেদকঃ


বাংলাদেশি পরিচয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র তৈরী করে পাসপোর্ট বানিয়ে সৌদিআরব সহ মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা রাষ্ট্রদ্রোহী মাদক ও মাফিয়া চক্রের বিরুদ্ধে জরুরি ব্যাবস্থা নিতে তৎপর হয়ে উঠেছে সরকারের দায়িত্বশীল বিভিন্ন সংস্থা।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদে সীমান্তের টেকনাফ কক্সবাজার সহ সারাদেশে চলছে তোলপাড়।

এরই প্রেক্ষিতে জাল এনআইডি সম্রাট সৌদি ফেরত কক্সবাজারের বাংলাবাজারে পূর্ব মুক্তারকুলে অবস্থানরত জৈনক ইসমত আরার স্বামী পাসপোর্ট জালিয়ত চক্রের শীর্ষ গডফাদার রোহিঙ্গা নেতা নুরুল হক সহ অনেকেই গা ডাকা দিয়েছে।

তাদের কেউ কেউ যে কোন মুহূর্তে স্থল, আকাশ,নৌ এবং বিমান পথে দেশ ত্যাগের প্রস্তুতি নিচ্ছে।
ফলে এসব অপরাধীরা কোন পথেই যেন বিদেশ পালাতে না পারে সেই ব্যাপারে তড়িৎ ব্যাবস্থা নিতে সরকারের দায়িত্বশীলদের আন্তরিক হস্তক্ষেপ কামনা করছেন বিশিষ্ট জনরা।

তারা বলেছেন,বাংলাদেশের পাসপোর্ট এন্ড ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ চায়লে একটা রোহিঙ্গা এবং রাষ্ট্রদ্রোহী পাসপোর্ট যেমন পাবেন না,ঠিক তেমন তারা বিদেশ পালাতে পারবেন না।
কিন্তুু দুর্ভাগ্য, বিমান বন্দরে দায়িত্বরত কিছু অসৎ পুলিশ সদস্য রয়েছে,যারা বিশিষ্ট জনদের দেশে আগমন এবং বহির্গমনের সময় শারীরিক মানসিক নাজেহাল করে ছাড়েন।
কিন্তুু চিহ্নিত অপরাধীদের কাছ থেকে নগদে তুষ্ট হয়ে জামাই আদরে দেশ ত্যাগ এবং আগমনে সহায়তা করেন।
বিনিময়ে ওইসব অপরাধীরা তাদের বাইরে থাকা দালালদের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার অনৈতিক সুবিধা দেন ঘুষখোরদের।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের শীর্ষ কয়েকজন কর্মকর্তা এবং রোহিঙ্গা প্রতিরোধ কমিটির একাধিক নেতা বলেছেন, ছবিতে দৃশ্যমান জালিয়ত চক্রের হোতা রোহিঙ্গা উগ্রপন্থী নেতা নুরুল হকের মত মানুষ বিমান বন্দর হয়ে দেশে আসা যাওয়ার বিষয়টি অত্যান্ত লজ্জা জনক।

তারা বলেন,সাম্প্রতিক সময় সৌদিআরব থেকে এসে সে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সংগঠিত নানা অপকর্ম,সরকারের মাদক বিরোধী অভিযান থামিয়ে দেওয়ার তৎপরতা, রাষ্ট্রদ্রোহীতা সহ হরেক অপকর্ম জড়িয়েছেন বলে বিভিন্ন মহল থেকে অভিযোগ আসছে।

একারণে সোমবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একটি টিম তাকে আটকের জন্য রাতভর চেষ্টা চালালেও অদৃশ্য শক্তির গোপন সংবাদের কারণে সে আত্মগোপন করে।

খবর পাওয়া যাচ্ছে, বর্তমানে সে বেশ পাল্টিয়ে বিমান বন্দর হয়ে পুণরায় বিদেশ পালিয়ে যাওয়ার গোপন তৎপরতা চালাচ্ছে।
এ অবস্থায় বিষয়টির ব্যাপারে সজাগ দৃষ্টি রাখার জন্য সকল গোয়েন্দা সংস্থা এবং সরকারের দায়িত্বশীল মহল ও ইমিগ্রেশন পুলিশের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন মহল।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল একটি কহল প্রতিবেদককে জানান,রোহিঙ্গা পাসপোর্ট, মাদকসহ সব প্রকার অপরাধের পিছনে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি এবং অসৎ রাজনৈতিক দুর্বৃত্ত ও স্থানীয় প্রশাসনের কিছু দুর্নিতিবাজ জড়িত।

এই চক্রে আইনের পোশাক পড়ে বেআইনি কাজে লিপ্ত এক শ্রেনীর উকিল মহরী দালাল টাউট বাটপার এবং পাসপোর্ট অফিসের কিছু অতি লোভি কর্মকর্তা কর্মচারি পাশাপাশি বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন স্থানীয় কিছু মেম্বার,চেয়ারম্যান,কাউন্সিলর, এবং মেয়র বিপদগামী লোক জড়িত রয়েছে।

মূলত,তাদের কারণে প্রকট আকার ধারণ করা সমস্যাটি কিছুতেই পরিপূর্ণ সমাধান করা যাচ্ছে না।

কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত দৈনিক কক্সবাজারবাণী ও জাতীয় দৈনিক জনতারবাণী সম্পাদক ও প্রকাশক, স্বাধীনতা স্বপক্ষীয় জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান,বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক এবং কক্সবাজার সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটির জেলা সভাপতি জনপ্রিয় সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খান বলেন,এ বিষয়ে ঘাটাঘাটি করায় কক্সবাজার পাসপোর্ট অফিসের সাবেক দুর্নিতিবাজ উপ-পরিচালক বাকী বিল্লাহ এবং টেকনাফ থানা পুলিশের ঘুষখোর কিছু পুলিশ সদস্য মিলে এখন আমার নিজের আবেদনকৃত ডিজিটাল পাসপোর্টের নবায়ন আটকিয়ে দিয়েছে।

প্রায় ৩ বছর হয়ে যাচ্ছে, এই ব্যাপারে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেও নিজের পাসপোর্টি ফিরে পাওয়া যায়নি। যাহার ডেলিভারি স্লিপ নাম্বার :-৩০৬৪৮৯/৩৮৪, তারিখ -০৯/১১/২০২০।
পুরাতন ডিজিটাল পাসপোর্ট নং-BA0727989

এদিকে স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদে জানা গেছে,স্বাধীনতার পর থেকে এই পর্যন্ত বিভিন্ন সরকার আমলে জালিয়াতির মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) হাতিয়ে নিয়েছে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা।

যা দেশের জন্য ভয়ানক ও উদ্বেগজনক।

মূলত অর্থের বিনিময়ে এদেশেরই একটি চক্র রোহিঙ্গাদের অবৈধভাবে এনআইডি কার্ড পেতে সহযোগিতা করছে। আর তার বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াটিও অত্যন্ত ঢিমেতালে চলছে।

ফলে ভিনদেশী নাগরিকরা এদেশের জন্মনিবন্ধন, জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) এবং পাসপোর্টও হাতিয়ে নেয়ার পাশাপাশি বিদেশে গিয়েও দেশের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করছে। আর ওসব অপকর্ম সম্পন্ন করতে গিয়ে ধরা পড়ে যারা আটক হয়েছে তাদেরও অধিকাংশ জেল থেকে বেরিয়ে গেছে।

সূত্রে জানায়, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা নাগরিক নুরুল হক বার্মা ২০১১ সালে ঝিংলজা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান ও ৭নং ওয়ার্ড মেম্বার নাছির ও সৈয়দ আকবর এবং মোরশোর সহযোগিতায় বাংলা বাজার পুর্ব মোকতার কুল, ঝিংলজা ইউনিয়ন বাগগুলা, কক্সবাজার ঠিকানায় এনআইডি তৈরি করেন।

বার্মা নাগরিক নুরুল হকের তার স্ত্রীর নাম ইছমত আরা। শশুর মৃত মিয়া হোসেন।তার ছেলের নাম রুবেল ও রহিম উল্ল্যাহ।

তিনি হচ্ছেন কক্সবাজার কেন্দ্রীক রোহিঙ্গা জালিয়ত চক্রের শীর্ষ এক গডফাদার।

কক্সবাজারের রোহিঙ্গা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মাহবুবুর রহমান বলেন, তারা এদেশীয় জালিয়াত চক্রের সঙ্গে যোগসাজশের মাধ্যমে খুব সহজেই হাতিয়ে নিয়েছে জন্ম সনদপত্র। পরবর্তীতে তাদের একটি অংশ হাতিয়ে নিয়েছে এআইডি। তারপর তারা পাসপোর্ট পাওয়ার প্রক্রিয়ায় তৎপর হয়। একপর্যায়ে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে চলে যায়। যেখানে গিয়ে বিভিন্ন অপরাধ মূলক কাজে জড়িয়ে পড়ে যা দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্‌ন হচ্ছে।


আরো বিভন্ন নিউজ দেখুন