• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০:২১ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
ঈদগাঁও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩টি পদে মোট ১৭জনের মনোনয়নপত্র দাখিল লাঞ্ছিত জীবনগাঁথা ঈদগাঁওতে ডিসি ও এস পি, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসন বদ্ধপরিকর উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে ঈদগাঁওতে নতুন পুরাতন প্রার্থীদের দৌঁড় ঝাঁপ ইয়াবা ও দালালীর জাদুতে আলাদীনের চেরাগপ্রাপ্ত কথিত সাংবাদিক নেতা কেতারা কি আইনের উর্ধ্বে? জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আব্দুল হাই ৩১ দিন পর অক্ষত অবস্থায় মুক্ত জাহাজসহ জিম্মি থাকা ২৩ নাবিক জামিন প্রাপ্ত মাদক ব্যবসায়ীরা বেপরোয়া, ঠেকানো যাচ্ছে না আগ্রাসন পেটে ভাত নেই,”গরিবের আবার কিসের ঈদ” কক্সবাজারে মাদক পতিতার মজুদ,আনন্দ বাড়াতে উড়াল দিচ্ছে ধনীরা কুতুবদিয়ায় পানিতে ডুবে একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যু

৩ বছরেও নাবায়ন হয়নি নির্যাতিত সাংবাদিক ফরিদুলের পাসপোর্ট, এমপি ডিসির সুপারিশ অমান্য

নিজস্ব প্রতিবেদক:
আপডেট : রবিবার, ১৫ অক্টোবর, ২০২৩


নিজস্ব প্রতিবেদক:


কক্সবাজারের সাবেক জেলা প্রশাসক,বর্তমানে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কামাল হোসেন ও সদর রামু ঈদগাও আসনের এমপি সাইমুম সরওয়ার কমল এমপির সুপারিশও পাত্তা দেন নি কক্সবাজার পাসপোর্ট অফিস।

পেশাগত কারণে পুলিশের সাথে পূর্ব শত্রুতার একটি সাজানো টেকনাফ থানা পুলিশের একটি প্রতিবেদনের অজুহাতে দীর্ঘদিন ধরে আটকিয়ে রেখেছেন ওসি প্রদীপের হাতে নির্যাতিত সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফার নবায়নের আবেদনকৃত ডিজিটাল পাসপোর্ট।
যাহার নং-BA0727989


ফরিদুল মোস্তফা খান অভিযোগ করেন,নিয়ম অনুযায়ী ডিজিটাল পাসপোর্ট নবায়নের জন্য নতুন করে পুলিশ প্রতিবেদনের প্রয়োজন পড়ে না।
কিন্তুু দুর্ভাগ্য কক্সবাজার পাসপোর্ট এন্ড ইমিগ্রেশনের উপ-পরিচালক বাকী বিল্লাহ রহস্য জনক কারণে আমি যেন পাসপোর্ট না পায়,সে জন্য হয়রানির নিমিত্তে আমার পাসপোর্ট আবেদনটি তদন্তের জন্য টেকনাফ থানা পুলিশের কাছে পাঠাই।
টেকনাফ থানা পুলিশ,নির্যাতিত সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফার বিরোদ্ধে একগাদা অভিযোগ দিয়ে প্রতিবেদন দাখিল করিলে আইনের গ্যাড়াকলে আটকে যায় পাসপোর্ট টি।


এই অবস্থায় ফরিদুল মোস্তফা খান ওসি প্রদীপের সাথে তার পেশাগত দন্ড,সাজানো মামলা,এবং এই সংক্রান্ত ব্যাপারে মহামান্য হাইকোর্টের রিট পিটিশন এবং মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে,করা আবেদন এবং আদালতের নির্দেশনা দাখিল করে গত ৫ জানুয়ারি ২০২১ ইংরেজি তারিখ মানবিক বিবেচনায় পাসপোর্ট টি ফিরে পেতে উপ-পরিচালক আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস কক্সবাজারকে একটি লিখিত আবেদন করেন।
যা ওই দিনই কক্সবাজার পাসপোর্ট অফিসের সুপারিন্ট্যান্ট মো: আজিজুর রহমান বিকাল ৫:২৮ মিনিটে দাপ্তরিক সিল এবং সাক্ষর দিয়ে গ্রহণ করেন।
অবিশ্বাস্য হলেও সত্য সেই ৫ জানুয়ারি ২০২১ থেকে এই পর্যন্ত প্রায় ৩ বছরেও নির্যাতিত সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফার পাসপোর্ট টি নবায়ন করে দেওয়া হয়নি।
অভিযোগ উঠেছে, উক্ত পাসপোর্ট কর্মকর্তা ফরিদুল মোস্তফার পাসপোর্ট নবায়নের আবেদনটি হাতে পেয়ে প্রথমে এসবি/ডিএসবি ভেরিফাই প্রয়োজন নাই মর্মে (not required) স্লিপ প্রধান করেন।যাহার নং-৩০৬৪৮৯/৩৮৪,তারিখ -০৯-১১-২০২০।
ফরিদুল মোস্তফা খান আরো অভিযোগ করেন,কক্সবাজার আঞ্চলিক পাসপোর্ট উপ-পরিচালক বাকী বিল্লাহকে বহু অনুনয় বিনয় এবং কক্সবাজারের সাবেক ডিসি, বর্তমান এমপি ও বিভিন্ন সহকর্মীর মাধ্যমে নিজের পাসপোর্টের জন্য অনুরোধ করা হলে তিনি ঢাকা অফিসের অজুহাতে কিছু উৎকোচ দাবী করে বসেন।
আত্মসম্মানের কথা বিবেচনা করে বিষয়টি তিনি এতদিন না জানালেও সম্প্রতি এই প্রতিবেদককে বলেন,এই পাসপোর্ট অফিসে দালালের মাধ্যমে হাজার হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি পাসপোর্ট নিয়ে পৃথিবীর আনাচে কানাচে ছড়িয়ে পড়লেও একজন সুপ্রতিষ্টিত দৈনিক পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক এবং নির্যাতিত সাংবাদিক হওয়ার সর্তেও আমার পাসপোর্ট না পাওয়ার বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।


তাছাড়া সরকারের পক্ষ থেকে আমার দেশ ত্যাগে কোন নিষেধাজ্ঞাও নেই।
নির্যাতিত সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফার পাসপোর্ট না পাওয়ার বিষয়ে একাধিক আইনজীবীর সাথে আলাপে জানা গেছে যে, তার মত একজন সৎ এবং নির্যাতিত সাংবাদিককে পাসপোর্ট নবায়ন করে না দেওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ বেআইনি।
তাছাড়া পুলিশের মামলা থাকলে যে একজন নাগরিক তার পাসপোর্ট পাবে না এমন কোন বিধান আইনে নেই।রাষ্ট্র ইচ্ছে করলে বা সন্দেহ হলে পাসপোর্টধারী কোন নাগরিককে দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা অথবা ইমিগ্রেশনে আটকাতে পারবে।
অতএব, এই ব্যাপারে ফরিদুল মোস্তফা খান উচ্চ আদালতে আশ্রয় নিলে পাসপোর্ট তো ফিরে পাবেন পাবেন,জড়িত দুর্নিতিবাজ পুলিশ সদস্য এবং পাসপোর্ট অফিসের দায়িত্বশীলদের বিরোদ্ধে কঠোর সিদ্ধান্ত আসতে পারে।
উল্লেখ্য নির্যাতিত সাংবাদিক ফরিদুল মোস্তফা খান কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত দৈনিক কক্সবাজারবানী মিডিয়া গ্রুপ এবং বানী ভিশনের সম্পাদক ও প্রকাশক।তিনি স্বাধীনতা স্বপক্ষীয় জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান এবং বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ছাড়া ও, সাংবাদিক নির্যাতন প্রতিরোধ কমিটি কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি হন।
এছাড়া তিনি কক্সবাজার রেডক্রিসেন্টে সোসাইটির আজীবন সদস্য সহ দেশের বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক এবং স্বাধীনতা স্বপক্ষীয় রাজনৈতিক সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত।


এদিকে এই ব্যাপারে বক্তব্য নিতে উক্ত দুর্নিতিবাজ পাসপোর্ট উপ-পরিচালক বাকী বিল্লার মুঠোফোন নাং-০১৭৩৩৩৯৩৩৫৪ এ যোগাযোগ করলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।
ফরিদুল মোস্তফা খানের আইনজীবীরা জানিয়েছেন দায়িত্বশীলরা সম্মানের সাথে বিনা ঘুষে পাসপোর্টি নবায়ন করে না দিলে তারা জড়িত পাসপোর্ট অফিসের দায়িত্বশীল সহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করতে বাধ্য হবেন।


আরো বিভন্ন নিউজ দেখুন