• বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১১:০২ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
ঈদগাঁও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩টি পদে মোট ১৭জনের মনোনয়নপত্র দাখিল লাঞ্ছিত জীবনগাঁথা ঈদগাঁওতে ডিসি ও এস পি, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসন বদ্ধপরিকর উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে ঈদগাঁওতে নতুন পুরাতন প্রার্থীদের দৌঁড় ঝাঁপ ইয়াবা ও দালালীর জাদুতে আলাদীনের চেরাগপ্রাপ্ত কথিত সাংবাদিক নেতা কেতারা কি আইনের উর্ধ্বে? জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আব্দুল হাই ৩১ দিন পর অক্ষত অবস্থায় মুক্ত জাহাজসহ জিম্মি থাকা ২৩ নাবিক জামিন প্রাপ্ত মাদক ব্যবসায়ীরা বেপরোয়া, ঠেকানো যাচ্ছে না আগ্রাসন পেটে ভাত নেই,”গরিবের আবার কিসের ঈদ” কক্সবাজারে মাদক পতিতার মজুদ,আনন্দ বাড়াতে উড়াল দিচ্ছে ধনীরা কুতুবদিয়ায় পানিতে ডুবে একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যু

লামায় বড় ভাইয়ের হাতে ছোট ভাই খুন

কে এইচ মহসিনঃলামা বান্দরবান
আপডেট : বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২৩

কে এইচ মহসিন লামা বান্দরবানঃ

প্রবাসী বড় ভাইয়ের পাঠানো টাকার হিসাবকে কেন্দ্র করে বান্দরবান জেলার লামা উপজেলায় বড় ভাই মোঃ ইউনুছ (২৪) লাঠির আঘাতে ছোট ভাই মোঃ আব্দুর রহিম (২২) নিহত হয়েছেন। হত্যার পর ছোট ভাইয়ের লাশ পাহাড়ে গুম করে রাখেন বড় ভাই ইউনুছ। ঘটনার একদিন পর সোমবার দিনগত গভীর রাতে ঘাতক মোঃ ইউনুছ নিজেই আবার স্বজনদের সহায়তায় নিহত ভাই আব্দুর রহিমের লাশ উদ্ধার করেন। পরে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে ছোট ভাইকে হত্যার ঘটনা স্বীকার করেন বড় ভাই ইউনুছ।
নিহত আব্দুর রহিম ও ঘাতক ইউনুছ ইউনিয়নের মধ্যম রাঙ্গাঝিরি পাড়ার ৬নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা আবুল কালামের ছেলে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মধ্যম রাঙ্গারঝিরি বাসিন্দা আবুল কালামের ৪ ছেলে ও ১ মেয়ে। বড় ছেলে মোঃ ফিরোজ (৪০) সৌদি প্রবাসী। ছোট তিন ছেলের কাছে বিভিন্ন সময় প্রবাসী বড় ভাই মোঃ ফিরোজ পারিবারিক কাজে টাকা পাঠাতেন। এসব টাকার হিসাব নিয়ে রবিবার দিনগত রাত পৌনে দশটার দিকে মধ্যম রাঙ্গারঝিরি সড়কের উপর ইউনুছ ও আব্দুর রহিমের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ইউনুছ ক্ষিপ্ত হয়ে লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করলে ঘটনাস্থলে মারা যান ছোট ভাই আব্দুর রহিম। পরে আব্দুর রহিমের লাশ পাশের পাহাড়ে লুকিয়ে রাখেন বড় ভাই ঘাতক মোঃ ইউনুছ।

এদিকে রাতে আব্দুর রহিম ঘরে না ফিরলে পরদিন সোমবার দিনগত রাতে স্বজনদের সহায়তায় ওই পাহাড় থেকে আব্দুর রহিমের লাশ উদ্ধার করেন এবং পুলিশে খবর দেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাটির তদন্ত শুরু করেন। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে ছোট ভাই আব্দুর রহিমকে লাঠি দ্বারা আঘাত করে খুন করেন বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেন বড় ভাই মোঃ ইউনুছ। পরে পুলিশ ঘাতক ইউনুছ কে আটক করে উপজেলা সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করেন।


আরো বিভন্ন নিউজ দেখুন