• সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
লাঞ্ছিত জীবনগাঁথা ঈদগাঁওতে ডিসি ও এস পি, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসন বদ্ধপরিকর উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে ঈদগাঁওতে নতুন পুরাতন প্রার্থীদের দৌঁড় ঝাঁপ ইয়াবা ও দালালীর জাদুতে আলাদীনের চেরাগপ্রাপ্ত কথিত সাংবাদিক নেতা কেতারা কি আইনের উর্ধ্বে? জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আব্দুল হাই ৩১ দিন পর অক্ষত অবস্থায় মুক্ত জাহাজসহ জিম্মি থাকা ২৩ নাবিক জামিন প্রাপ্ত মাদক ব্যবসায়ীরা বেপরোয়া, ঠেকানো যাচ্ছে না আগ্রাসন পেটে ভাত নেই,”গরিবের আবার কিসের ঈদ” কক্সবাজারে মাদক পতিতার মজুদ,আনন্দ বাড়াতে উড়াল দিচ্ছে ধনীরা কুতুবদিয়ায় পানিতে ডুবে একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যু টেকনাফ অপরাধ নিয়ন্ত্রণে স্থানীয়দের সহায়তা চাইলেন এসপি মাহফুজ

জেলায় ঔষধ এর গুণগতমান নিচ্ছিত করতে আরো ২টি মিনি ল্যাব স্থাপন করা হবে-ডিজি মাহবুবু রহমান

কক্সবাজারবানী
আপডেট : শনিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২১

মোহাম্মদ শফিক, জেলা প্রতিনিধি কক্সবাজার :
কক্সবাজারে ঔষধের গুণগতমান নিচ্ছিত করার জন্য আরো ২টি মিনি ল্যাব স্থাপন করা হবে। এছাড়া ড্রাগ লাইসেন্স ও ফার্মাসিস্ট ছাড়া ঔষধ বিক্রি করা যাবে না। যদি ল্যাবে কোন ঔষধ ভেজাল ধরা পড়ে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। শনিবার (২৩ জানুয়ারি) দুপুরে কক্সবাজার ইউনিয়ন হাসপাতালের ‘ইউনিয় মডেল ফার্মেসিসহ আরো কয়েকটি ফার্মেসি উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোঃ মাহবুবুর রহমান এসব কথা বলেন।


তিনি আরো বলেন, বিশেজ্ঞ ডাক্তারের ফ্রেসক্রিপশন ছাড়া কোন ফার্মেসি এ্যন্টিবায়োটিক ঔষধ বিক্রি করতে পারবে না। ড্রাগ লাইসেন্স না থাকা মানে দোকান অবৈধ। ঔষধের দোকানে তদারকির পাশাপাশি সঠিক অভিযোগ ও তথ্যের ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়া কোন ফার্মেসি বেশি দামে ঔষধ বিক্রি করতে পারবে না। বর্তমানে একটি ল্যবে কাজ করছে। পরে আরো ২টি মিনি ল্যাব স্থাপন করা হবে। তিনি বলেন, দেশে মানসম্মত ঔষধ উৎপাদন হচ্ছে। সারাদেশে ৫০০ মডেল ফার্মেসি করা হয়েছে। ড্রাগলাইসেন্স ও ফার্মাসিস্ট ছাড়া কোন ঔষধ বিক্রি করা যাবে না। বন্ধ করা হবে যত্রতত্র ঔষধ বিক্রি।এ সময় তিনি দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা আরো উন্নত করা হবে বলেও সাংবাদিকদের জানান।
কক্সবাজারের বিষয়ে অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, কক্সবাজারে এখনো পর্যন্ত একজন দিয়ে তাদের কাজ চলছে। যে কারণে অনেক কাজ সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করা অসম্ভব। এসব বিবেচনায় আরেকজন ড্রাগ সুপার দেয়া হবে। তখন তদারকি বাড়বে। নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে সবকিছু।
এ সময় ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোঃ সালাহ উদ্দিন, ড্রাগ সুপার রুমেল মলি­ক, ইউনিয়ন হাসপাতালের চেয়ারম্যান আরিফ উল মওলা, বাংলাদেশ কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট সমিতি কক্সবাজারের সহসভাপতি মিজানুর রহমান, সদস্য রাজু সেন, তিলক চৌধুরী, শেখ সেলিম, মোঃ ইলিয়াছ, হাবিবুল ইসলাম, রোগো দাশসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।
মতবিনিময় সভা শেষে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোঃ মাহবুবুর রহমানকে কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট সমিতি কক্সবাজারের পক্ষ থেকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।


আরো বিভন্ন নিউজ দেখুন