• শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:১৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ খবর
লাঞ্ছিত জীবনগাঁথা ঈদগাঁওতে ডিসি ও এস পি, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসন বদ্ধপরিকর উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে ঈদগাঁওতে নতুন পুরাতন প্রার্থীদের দৌঁড় ঝাঁপ ইয়াবা ও দালালীর জাদুতে আলাদীনের চেরাগপ্রাপ্ত কথিত সাংবাদিক নেতা কেতারা কি আইনের উর্ধ্বে? জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আব্দুল হাই ৩১ দিন পর অক্ষত অবস্থায় মুক্ত জাহাজসহ জিম্মি থাকা ২৩ নাবিক জামিন প্রাপ্ত মাদক ব্যবসায়ীরা বেপরোয়া, ঠেকানো যাচ্ছে না আগ্রাসন পেটে ভাত নেই,”গরিবের আবার কিসের ঈদ” কক্সবাজারে মাদক পতিতার মজুদ,আনন্দ বাড়াতে উড়াল দিচ্ছে ধনীরা কুতুবদিয়ায় পানিতে ডুবে একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যু টেকনাফ অপরাধ নিয়ন্ত্রণে স্থানীয়দের সহায়তা চাইলেন এসপি মাহফুজ

স্ত্রীর মর্যাদা পেতে বিষের বোতল হাতে অনশনে তরুণী।

মোঃ নাজিম উদ্দিন: পেকুয়া প্রতিনিধি
আপডেট : রবিবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২৩


মোঃ নাজিম উদ্দিন (কুতুবী) পেকুয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের পেকুয়ায় বিষের বোতল হাতে নিয়ে স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশনে বসেছে এক তরুণী। ওই তরুণী সাফ জানিয়ে দিয়েছে, ঘরে না তুললে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করবে। অন্যদিকে, প্রেমিকের মায়ের অনড় অবস্থান, কোনভাবেই তাকে ঘরে তুলবেন না।

রবিবার(৩ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলার টইটং ইউনিয়ন নাপিতখালী সিকদার পাড়া এলাকায় মাহামুদুল হকের ছেলে জাহেদুল ইসলামের বাড়িতে এঘটনা ঘটে।

ওই তরুণী বলছে, জাহেদুল ইসলামের সঙ্গে তার দুই বছর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কয়েকমাস আগে ১২ লাখ টাকা দেনমোহরে ইসলামী শরীয়া মতে তাদের বিয়ে হয়। তবে বিভিন্ন অজুহাতে তাকে আর ঘরে তুলছে না জাহেদ। চাকরির কথা বলে তার বাবার কাছ থেকে ২ লাখ টাকা নিয়ে এখন আর যোগাযোগ করছে না।

স্থানীয়রা জানান, রবিবার সকালে ওই তরুণী কাবিন নামা ও বিষের বোতল হাতে নিয়ে মাহমুদুল হকের বাড়িতে আসে। স্ত্রীর মর্যাদা দিয়ে তাকে ঘরে তুলে না নিলে আত্মহত্যার কথা বলে যাচ্ছে।

প্রেমিক জাহেদের মা রেহেনা বেগম বলেন, বিয়ের কথা আমরা জানার পর ডিভোর্স লেটার পাঠিয়ে দিয়েছি। তাকে আমার ছেলে ঘরে তুলবেনা, আমরাও ডুকতে দেবনা।

স্থানীয় ইউপির সদস্য ফয়সাল জানান, ঘটনাটি সত্য তবে আমি যতটুকু শুনেছি ওই মেয়েকে কয়েকমাস আগে প্রেম করে মাহামুদুল করিমের ছেলে জাহেদ বিয়ে করে। বিভিন্ন অজুহাতে টাকা পয়সাও হাতিয়ে নেয়। কিছু দিন আগে নাকি ছেলেটি ওই মেয়েকে ডিভোর্স দিয়েছে।

পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ওমর হায়দার বলেন , ওই মেয়ের বিয়ে হয়েছিল। মেয়েটি নারী নির্যাতন কোর্টে ছেলেও তার পরিবারের বিরুদ্ধে মামলা করেছে সেটি এখনো চলমান তারপরও অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে নিয়ে মেয়েটিকে সেইফ হোমে আনার চেষ্টা করছি।


আরো বিভন্ন নিউজ দেখুন