• বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:১৬ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ খবর
ঈদগাঁও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৩টি পদে মোট ১৭জনের মনোনয়নপত্র দাখিল লাঞ্ছিত জীবনগাঁথা ঈদগাঁওতে ডিসি ও এস পি, নির্বাচন সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্ন করতে প্রশাসন বদ্ধপরিকর উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে ঈদগাঁওতে নতুন পুরাতন প্রার্থীদের দৌঁড় ঝাঁপ ইয়াবা ও দালালীর জাদুতে আলাদীনের চেরাগপ্রাপ্ত কথিত সাংবাদিক নেতা কেতারা কি আইনের উর্ধ্বে? জাতীয় শুদ্ধাচার পুরস্কার পেলেন পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আব্দুল হাই ৩১ দিন পর অক্ষত অবস্থায় মুক্ত জাহাজসহ জিম্মি থাকা ২৩ নাবিক জামিন প্রাপ্ত মাদক ব্যবসায়ীরা বেপরোয়া, ঠেকানো যাচ্ছে না আগ্রাসন পেটে ভাত নেই,”গরিবের আবার কিসের ঈদ” কক্সবাজারে মাদক পতিতার মজুদ,আনন্দ বাড়াতে উড়াল দিচ্ছে ধনীরা কুতুবদিয়ায় পানিতে ডুবে একই পরিবারের দুই শিশুর মৃত্যু

মাদক নির্মূলে সুস্থ প্রাপ্ত আসক্ত ব্যাক্তি ও সেনা মোতায়েনের দাবি,টেকনাফে পুত্রের হাতে পিতা খুন

কক্সবাজারবানী ডটকম:
আপডেট : মঙ্গলবার, ২৯ আগস্ট, ২০২৩

কক্সবাজারবানী ডটকম:

কক্সবাজারের টেকনাফে মো: পারভেজ (২২) নামের এক যুবক মাদক সেবনের টাকা না পেয়ে বসত-বাড়িতে ঢুকে তার পিতাকে ছুরিকাঘাত করে খুন করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
নিহত ব্যক্তি হলেন-টেকনাফ সদর ইউনিয়ন ৮ নং ওয়ার্ড মৌলভীপাড়ার ঠান্ডা মিয়ার ছেলে বশির আহমদ (৫০)।
মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) সকালে টেকনাফ সদর ইউনিয়ন ৮ নং ওয়ার্ড মৌলভী পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
এ বিষয়টি জানিয়েছেন টেকনাফ সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান জিয়াউর রহমান জানান,নিহত বশির আহমদের সাথে তার বড় পুত্র সন্তান মো. পারভেজ নেশার টাকার জন্য প্রায় সময় ঝগড়া করতো বলে জানা যায় ।
সর্বশেষ মঙ্গলবার মো. পারভেজ আবারো টাকা চাইতে গেলে টাকা না পেয়ে তার পিতার সাথে বাক-বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন।ঘটনার এক পর্যায়ে বসত-বাড়ির ভেতরে ঢুকে বশির আহমদক তার জন্মদাতা পিতাকে উপর্যোপুরি ছুরিকাঘাত করে খুন করে। এ ঘটনার পর আমি পুলিশকে ঘটনাটি অবগত করেছি।

এ ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার ওসি তদন্ত নাসির উদ্দীন মজুমদার জানান,টেকনাফ সদর ইউনিয়ন ৮ নং ওয়ার্ড মৌলভী পাড়া এলাকার বশির আহমদকে তার সন্তান মো: পারভেজ ছুরিকাঘাত করেন।
ঘটনাটি জানার পর আমরা ঘটনাস্থলে গেলে মো. পারভেজ পালিয়ে যায়। তবে আমরা তাকে আটক করার অভিযান অব্যাহত রেখেছি। লাশটি উদ্ধার পূর্বক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
এদিকে মাদক বিরোধী অভিযানে সরকার প্রয়োজনে
সেনা বাহিনীকে সংযুক্ত না করলে টেকনাফ-কক্সবাজারের মাদক কোন দিন নির্মূল হবে না বলে অভিমত বিশিষ্ট জনদের।

তারা বলেন ইতি পূর্বে মাদক নির্মূলের নামে ওসি প্রদীপরা যে অভিযান গুলো পরিচালনা করেছে তা ছিলো মাদকসেবী মাদক ব্যাবসায়ী ও গডফাদারদের শিখিয়ে দেওয়া মতে।

এসব অভিযানে নিজেদের প্রতিপক্ষ মাদক ব্যাবসায়ীদের নির্মূল করা হলেও ক্ষমতাসীন দলের নাম ব্যাবহার কারী মাদক সম্রাটরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থেকে প্রাসাদে নাকে তেল দিয়ে ঘুমাচ্ছেন এখনো।

এ অবস্থায় মাদক নির্মূলে সুস্থ প্রাপ্ত আসক্ত ব্যাক্তিদের কাজে লাগিয়ে চুনোপুঁটিদের দিকে নজর না দিয়ে আগে রাঘব বোয়াল নির্মূলের উপর গুরুত্ব দিয়েছেন সচেতন মহল।

তারা বলেন,বিচার বহির্ভূত হত্যা নয় বাবা ব্যাবসায়ীদের বাবাদেরকে আইনের আওতায় আনতে না পারলে ভবিষ্যৎ বাংলাদেশ হবে মানসিক রোগি অভয়ারণ্য।


আরো বিভন্ন নিউজ দেখুন